কিভাবে চিনবেন আপনার স্যামসাং গ্যালাক্সি সেট টি আসল?? 1


বর্তমান যুগ স্মার্টফোনের যুগ।আমরা সকালে ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে এবং ঘুমাতে যাওয়া পর্যন্ত নানান কাজে স্মার্টফোনের উপর  কম বেশি নির্ভরশীল।আর স্মার্টফোনের বেশির ভাগ ক্ষেত্রে আমরা এখন বিশ্ব বিখ্যাত মোবাইল কোম্পানি স্যামসাংয়ের সেটকে প্রাধান্য দিয়ে থাকি।তার অনেক কারণ এই কোম্পানির ডিভাইস গুলো বিশ্ব বিখ্যাত আর বহুল ব্যবহৃত।

বাজারে নকল ডিম,নকল চাল এমন কি নকল বাাঁধাকপি আসতে পারলে মোবাইল কেন নকল হতে পারে না।ভেবে দেখুন তো একবার।তাহলে আপনার হাতে থাকা স্যামসাং মোবাইল টি আসল ???মনে সন্দেহ জাগা শুরু হয়ে গেল??

আসুন আপনাদের সন্দেহ দূর করার জন্য আজকে আমার এই আয়োজন।আজকে আপনাদের দেখাব কিভাবে বুঝবেন আপনার হাতে থাকা স্যামসাং মোবাইলটি আসল নাকি ক্লোন করা নকল স্যামসাং।তো চলুন দেখা যাক –

প্রথমে আসুন সাধারণ ভাবে কিছু কোডের মাধ্যমে দেখি আসলে আমাদের স্যামসাং সেটটি আসল না নকলঃ

আপনার স্যামসাং মোবাইলটি হাতে নিন তারপর  নিচের কোডগুলো একটা একটা ব্যবহার করে দেখে নিন-

  • *#1234#  এটা আপনাকে দেখাবে  SW Version PDA এবং CSC,
    MODEM
  • *#0*# এটা হচ্ছে জেনারেল টেস্ট মোড
  • *#12580369# এটা সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার তথ্য দেখাবে
  • *#197328640# এটা সার্ভিস  মোড দেখাবে
  • *#0228# ADC Reading দেখাবে
  • *#32489# Ciphering তথ্য দেখাবে
  • *#232337# ব্লুটুথ এড্রেস দেখাবে
  • *#232331# এটা ব্লুটুথ টেস্ট মোড

তাছাড়া আপনার স্যামস্যাং অ্যান্ড্রয়েড অনুমোদিত কিনা সেটা যাচাই করতে আপনার মোবাইল থেকে setting >about phone > version গিয়ে দুই থেকে তিনটি ক্লিক বা ট্যাপ করুন,তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার সেটটি আসল না নকল।কারণ তখন আপনাকে একটি  লাল রংয়ের ইমো এসে জানিবে দিবে সেট ভার্সন আর সফটওয়্যার ভার্সন।

সেটের মেইড বাই কি সেটা দিয়ে আপনার সেটের আসল নকল বের করা বেশ মুশকিল।কারণ সাধারণত মেইড বাই স্যামসাং এটা আসল,কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে সেটাও নকল পড়ে যায়।এটা শুধু একটা স্টিকার প্রিন্ট তাই এটা নকল করা সহজ।এ রকম আরো কিছু েমেইড বাই পাবেন যেমন ধরুন ভিয়েতনাম বাই স্যামসাং,কোরিয়ান বাই স্যামসাং ইত্যাদি।

এবার চলুন একটা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ দিয়ে টেস্ট করা যাকঃ

প্রথমে আপনার ফোনে এই অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটি গুুগুল প্লে স্টোর থেকে নামিয়ে নেন।

আসল স্যামসাং চিনার উপায় কি জানেন?

এই অ্যাপটি এবার ইনস্টল করে আপনার ফোনে চালু করে দিন।দেখবেন এই একটা অভিনন্দন জানিয়ে মেসেজ উইন্ডো আসবে।আর যদি না আসলে আপনার মন খারাপ ছাড়া আর কোনো গতি নেই।কারণ নকল ফোন কিনে ধরা খেয়ে গেলেন তা প্রমাণ হয়ে গেল।

তাছাড়া আপনি এই ভিড়িও টি দেখতে পারেনেএখানে বিস্তারিত বলা আছে-

এবার দু একটা জনপ্রিয় স্যামসাং গ্যালাক্সি সেট নিয়ে চেষ্টা করা যাকঃ

প্রথমে আসা যাক গ্যালাস্কি এস ৩ নিয়ে।নিচের বিষয়গুলো ভালভাবে খেয়াল করুন।তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার সেটটি আসল না নকল।

  • আসল স্যামসাং গ্যালাস্কি  এস ৩ নকল স্যামসাং গ্যালাস্কি এস ৩  থেকে হালকা।
  • আসলটার ডাইমেনসান আর নকল টার ডাইমেনসান অনেক পার্থক্য থাকবে।যেমনঃ8.6 x 70 x 136.6 mm এবং 10 x 70 x 130 mm এই রকম করে  পার্থক্য হতে পারে।
  • নকল এস ৩ এর ক্যামরা কোয়ালিটি অনেক বাজে থাকবে।যা খালি চোখে বুঝতে পারবেন।
  • নকল এস ৩ এ  AmoLED ডিসপ্লে অথবা Corning Gorilla Glass 2 থাকবে না।প্রায়ই ক্ষেত্রে এটা দেখা গেছে।
  • স্যামস্যাংয়ের কিছু অসাধারণ ফিচার যেমন Geo-tagging, face recognition, smile detection, optical image stabilization এবং HD ভিডিও রেকর্ডিং নকল এস ৩ তে থাকে না।
  • সেটের প্রসেসর এর সার্ভিস অনেক খারাপ থাকবে।
  • ইন্টারনাল মেমরি অনেক ছোট সাইজের থাকবে।
  • আপনার সেটের লক স্ক্রীণে রিপল ইফেক্ট টি থাকবে না বেশির ভাগ সেটে।
  • কিছু স্মার্ট ফিচার যেমন Eye tracking এবং Smart Stay নকল ফোনে পাবেন না।

অনেকে ক্ষেত্রে নকল স্যামসাং গ্যালাস্কি এস ৩ এ গুগুল প্লে স্টোর থাকে না।এভাবে আপনি বুঝে যাবেন আপনার প্রিয় স্যামসাং গ্যালাস্কি এস ৩ সেটটি আসল না নকল।আপনার মনে সন্দেহ দূর হোক এটাই আমাদের কাম্য।

তাছাড়া এই ভিড়িও গুলো দেখতে পারেন বিশেষ করে যারা স্যামসাং গ্যালাস্কি এস ৪ ব্যবহার করেন।এখানে আপনি হার্ডওয়্যার সহ নানান ধরনের পার্থক্য খুব সহজে বুঝতে পারবেন।

আজ তাহলে এই পর্যন্ত।্এবার তাহলে নিজেই যাচাই করে নিন আপনার প্রিয় স্যামসাং গ্যালস্কি সেট। আপনাদের জন্য অনেক শুভ কামনা রইল।সবার সুস্থতা কামনা করে বিদায় নিচ্ছি।খোদা হাফেজ।