ঘরেই বানিয়ে ফেলুন আপনার পছন্দের টুথপেস্ট !!!


শিরোনাম দেখে আঁতকে উঠার কিছুই নেই।আসলে এটা সম্ভব।আপনি চাইলে আপনার পছন্দমত টুখপেস্ট বানাতে পারেন।আজ শিখিয়ে দিব সেই কৌশল।আশা করছি সাথে থাকবেন।

নারিকেল-তেল-দাঁতের-যত্নে

তার আগে জেনে নেয়া যাক বাজারে পাওয়া টুথপেস্ট গুলা কি কি উপাদান থাকে।আসলে এই উপাদান গুলা কি স্বাস্থ্যসম্মত??নানান প্রশ্ন মনে জাগতে পারে।উত্তর গুলো এখানেই ……….

টুথপেস্টের প্রধান উপাদান তিনটি। যথা – ১। Abrasives, ২। Fluorides, ৩। Sodium Lauryl Sulfate।এছাড়া কৃত্রিম রং,মিষ্টিকারক রাসায়নিক, propylene gycol এবং diethanolamine থাকতে পারে।

তবে বলে রাখা ভালো বাজারে বিদ্যমান টুথপেস্টে এর থেকে ভয়ংকর রাসায়নিক পদার্থ পাওয়া যেতে পারে,যা উপকারের চেযে অপকার বেশি করে।

আমরা সবাই জানি দাঁতের মূল যত্ন হচ্ছে ব্রাশিং,মাউথ ওয়াশ এবং ফ্লসিং।

তো চলুন কাজের কথায় আসি।আজ আমরা শিখব কিভাবে ঘরে বসে খুব সহজে  টুথপেস্ট বানাতে পারি।

যাহোক দাঁতের যত্নে আয়ুবের্দিক চিকিৎসা শাস্ত্রে অনেক আগে নারকেল তেলের ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে।এটা আপনার দাঁতের ‍উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।এই তেল দাঁতের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দূর করে এবং মুখে দুর্গন্ধ হওয়া থেকে রক্ষা করে।এই পদ্ধতিটি দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।

দাঁতের যত্নে নারিকেল তেল ও বেকিং সোডাঃ

১.দুই টেবিল চামচ করে নারিকেল তেল ও বেকিং সোডা একটি ছোট পাত্রে মেশান,যাতে পেস্ট এর মত হয়।

২.তার সাথে যুক্ত করুণ ১০ ফোটা পেপারমিন্ট  ওয়েল এবং মেশাতে থাকুন(এটা টুথপেস্টের স্বাদ বাড়ায়) ।

৩.এই পেস্ট প্রতিদিন ব্যবহার করুন,আপনার দাঁতকে উজ্জ্বল,সাদা এবং ফ্রেশ নিঃশ্বাস নিতে।

আপনার পরিমাণ মতো তেলের পরিমাণ হ্রাস বৃদ্ধি নির্ভর করে।প্রাকৃতিক নারিকেল তেলকে মিশ্রণের বেলায় প্রাধান্য দেয়া উচিত।

আসুন এবার জেনে নেয়া যাক বাজারে পাওয়া টুখপেস্ট গুলা কতটা স্বাস্থ্য সম্মত।

Tooth-Paste-color-Code

উপরের নির্দেশিত রং থেকে বুঝা যায়,আসল টুথপেস্ট কোনটি…

লালঃপ্রাকৃতিক ও রাসায়নিক উপাদানের মিশ্রণে তৈরি

কালোঃসম্পূর্ণ রাসায়নিক উপাদানে তৈরি

নীলঃভেষজ ও প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি

সবুজঃসম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি

তাহলে এবার বুঝতে পারবেন আপনার জন্য কোন টুথপেস্ট ভালো। সবাই ভালো থাকবেন।ভালো লাগলে কমেন্ট করে জানাবেন।ধন্যবাদ।