পাওয়ার ব্যাংক তো ব্যবহার করছেন।কতটুকু জানেন পাওয়ার ব্যাংক সর্ম্পকে?? 1


buy online power bank
আমরা প্রযুক্তির চরম শিখরে পৌঁছে গেছি।আজ আমাদের দৈনন্দিন জীবন প্রযুক্তি ছাড়া কল্পনা
করতে পারি না।সকালে ঘুম থেকে উঠা থেকে শুরু করে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত নানা কাজে
আমরা প্রযুক্তির উপর নির্ভরশীল।আমরা আমাদের ব্যক্তিজীবন,পারিবারিক কিংবা রাষ্ট্রীয় জীবনের পথচলায় প্রযুক্তিকে নিয়েছি পাথেয় হিসেবে।আজ আপনাদের গল্প শুনাব তেমনি এক প্রযুক্তির কথা।যার নাম মোবাইল পোর্টবল পাওয়ার ব্যাংক।

আজকাল আমরা অনেক স্মার্ট।আমাদের স্মার্টনেস ফুটিয়ে তুলতে স্মার্টফোনের বিকল্প নেই।স্মার্টফোন আজ অনেক জনপ্রিয়।উঠতে,বসতে,খাইতে কিংবা গাইতে আমাদের চির সংগী এই স্মার্টফোন। মহূর্তের মধ্যে নিজের জরুরী কাজ সারতে কিংবা নিজেকে সারাক্ষণ আপডেট রাখতে স্মার্টফোনের জুড়ি মেলা ভার। আর এই উপকারী স্মার্টফোনের বিড়াম্বনা ও কম নেই।এই স্মার্টফোন গুলা আসলে অনেক বেশি পাওয়ার বা ব্যাটারি চার্জের উপর নির্ভরশীল।এই নির্ভরশীলতার কারণ এদের বড় পর্দা বা ডিসপ্লে ,উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রসেসর,একাধিক কাজ একসাথে করার ক্ষমতা সহ নানাবিধ।তাই স্মার্টফোন ব্যবহারকারীকে বার বার চার্জিং এর ব্যবস্থা করতে হয়।না হয় জরূরী মহূর্তে আপনার ফোন আপনাকে সেবা দিতে পারে না।তাই প্রয়োজন হয় পোর্টবেল ব্যাটারি বা পাওয়ার ব্যাংক।যা আপনাকে দরকারী মহূর্তে সরবরাহ করবে মোবাইল পাওয়ার বা চার্জ।তাই আজকাল প্রত্যেক স্মার্টফোন ব্যবহার কারীর অন্তত একটি হলেও পাওয়ার ব্যাংক চাই।

পাওয়ার ব্যাংক

আসুন জেনে নেয়া যাক ,পাওয়ার ব্যাংক ডিভাইস টা কি? এতক্ষণে অনেকটা পরিষ্কার হয়ে গেছে তারপরেও একটু জ্বালিয়ে নেয়া।পাওয়ার ব্যাংক হলো সহজ কথায় আলাদা একটা মোবাইল ব্যাটারি বা ব্যাক-আপ ব্যাটারি বা বহনযোগ্য মোবাইল চার্জার।এই ডিভাইস দিয়ে আপনি আপনার মোবাইল,ট্যাবলেট বা ট্যাব,ল্যাপটপ বা অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স গেজেট যে কোন স্থানে চার্জ করে নিতে পারবেন।পাওয়ার ব্যাংক আকার,সাইজ,গঠন,ধারণ ক্ষমতা এবং ব্যবহার অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে।

পাওয়ার ব্যাংক সম্পর্কে তো হালকা ধারণা পেলেন।এবার আসা যাক পাওয়ার ব্যাংক সম্পর্কিত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা।যেগুলা আমাদের অনেকে অজানা।তো চলুন শুরু করা যাক।

এম.এ.এইচ(mAh)

আমরা পাওয়ার ব্যাংক কিনতে গেলে প্রথম ব্যবহার করা শব্দটা হয়ত এটাই ব্যবহার করি।কিন্তু অনেকেই জানি না এটা আসলে কি? এটা কিসের নির্দেশক বা পরিমাপক। এম.এ.এইচ হল পাওয়ার ব্যাংকের পাওয়ার ধারণ ক্ষমতার নির্দেশক।এটি নির্দেশ করে আপনার প্রত্যাশিত পাওয়ার ব্যাংক আপনাকে কতটুকু চার্জ সরবরাহ করার ক্ষমতা রাখে।ইংরেজি এম.এ.এইচ এর পূর্ণরুপ মিলি এম্পিয়ার পার আওয়ার।অর্থাৎ একটি পাওয়ার ব্যাংক ঘন্টায় কতটুকু পাওয়ার সরবরাহ করে তার পরিমান হলো এম.এ.এইচ।যদি একটি পাওয়ার ব্যাংক ১০,০০০ এম.এ.এইচ হয় তাহলে বলা যাবে এই পাওয়ার ব্যাংকটি ঘন্টায় ১০,০০০ মিলি এম্পিয়ার চার্জ সরবরাহ করতে পারবে।

কনভার্সন রেট

এটা সর্ম্পকে আমরা অনেকে ওয়াকিবহাল নই।আসলে পাওয়ার ব্যাংক কিনতে গেলে এটা জানাও জরুরী।পাওয়ার ব্যাংকের ভিতরে ব্যাটারি ছাড়াও আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশ থাকে তার মধ্যে একটি হলো সার্কিট।চার্জিং এবং ডিচার্জিং নিয়ন্ত্রণ করার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়।এটির জন্য বেশ কিছু বিদ্যুৎ ব্যবহার হয়ে থাকে।এই বিদ্যুৎ ব্যবহারের হার ই হল কনর্ভাসন রেট।এবার তো বুঝছেন ,আশা করছি।

পি.সি.বি

প্রিন্টেড সার্কিট বোর্ড বা সংক্ষেপে পি.সি.বি।এটি তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয় তারপরও আলোচনার খাতিরে বলা।এটি আসলে প্রায়ই ইলেকট্রনিক্স পণ্যে থাকে।এই বোর্ডের কাজ হল যন্ত্রে বিদ্যমান আইসি গুলোর মাধ্যমে যাবতীয় কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ করা।

সুবিধা

এবার দেখি বাজারে বিদ্যমান পাওয়ার ব্যাংক সমূহের কিছু সুবিধার কথা।পাওয়ার ব্যাংক নানাবিধ সুবিধা দিতে পারে আপনাকে।যেমন -শর্ট সার্কিট সুরক্ষা,অতিরিক্ত চার্জিং সুরক্ষা,তাপমাত্রা জনিত ‍সুরক্ষা, টর্চ লাইট সহ আরো অনেক কিছু।ডেস্কটপ বা ল্যাপটপের ইউএসবি বা নরমাল মোবাইল চার্জার দিয়ে আপনার পাওয়ার ব্যাংক চার্জ করে নিতে পারবেন।

সকর্ততা

আসলে পাওয়ার ব্যাংক আসলে বিপদজ্জনক।এটার মাধ্যমে ভয়ানক বিস্ফোরণ ও হতে পারেন।তাই যতটা সম্ভব সরবরাহ কারী কর্তৃক প্রদত্ত নির্দেশনা মেনে চলা উচিত।অনেক সময় পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার আপনার ফোনের ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।তাই জেনে শুনে পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করা উচিত।
পাওয়ার ব্যাংক কিনতে গেলে আপনাকে কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে ,সে বিষয়ে একটি বিস্তারিত বিষয় একদিন সময় করে করব।সেই পর্যন্ত ধৈর্য ধরে আমার সাথে থাকবেন আশা রাখছি।

শেষ করার আগে আজ মজার একটা পাওয়ার ব্যাংকের গল্প শুনাতে চাই।

power card exclusive power bank powered by water

আমরা সাধারণত পাওয়ার ব্যাংক চার্জ করি কি দিয়ে? উত্তর হবে নিশ্চয় কারেন্ট বা বিদ্যুৎ দিয়ে।কিন্তু আজ আপনাদের যে পাওয়ার ব্যাংকের কথা বলছি সেটা চার্জ হয় বিদ্যুৎ দিয়ে নয় সেটা চার্জ হয় পানি দিয়ে !!
এই পাওয়ার ব্যাংকটি দেখতে অনেকটা ক্রেডিট কার্ডের মত।এতে রয়েছে লবণাক্ত পানি,যা রাসায়নিক বিক্রয়ার মাধ্যমে বিদ্যুৎ কাজে ব্যবহৃত হয়।তাই অত্যন্ত সহজভাবে আপনার মোবাইল ফোনকে চার্জ করে দিতে পারে।এই ডিভাইসটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের নাম জে.এ.কিউ।প্রতিষ্ঠানটি এই পাওয়ার ব্যাংকটির নাম দিয়েছেন পাওয়ার কার্ড।এতে রয়েছে ১৮০০ এম.এ.এইচ ব্যাটারির সমান ক্ষমতা।এই পাওয়ার কার্ড নামের পাওয়ার ব্যাংকটি নিতে চাইলে ,আপনাকে গুনতে হতে পারে ১.৫ মার্কিন ডলার সমপরিমান টাকা।

অনেক কথা হলো ।আজ তাহলে বিদায় নিতে চাই।আগামীতে ফিরছি পাওয়ার ব্যাংক কিনতে হলে কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে এই টপিক নিয়ে।সেই পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন।এই আশা রেখে……আল্লাহ হাফেজ।